কি ওয়াড রিসার্চ কি মেজিক
Digital Marketing

কি ওয়ার্ড রিসার্চ কি ম্যাজিক?

 

আমারা সবাই মেজিক দেখলে চমকে যাই, থোমকে দারাই, ভাল লাগে। কারন আমরা মেজিক থেকে মজা পাই।

চলুন আজ আমরা কিওয়াড নিয়ে কিছু কথা বলব।  

 

  • কি ওয়ার্ড আসলে কি।
  • কি ওয়ার্ড রিসার্চ  কেন করা হয়
  • কি ওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করা হয়
  • কোন বিষয় গুলো দেখতে হয়
  • ভালো কীওয়র্দ কিভাবে পাওয়া যায়।

 

তাহলে চলুন আমরা আমাদের যাত্রা শুরু করি।

 

কী ওয়ার্ড রিসার্চ আসলে কিঃ

 

কি  ওয়ার্ড রিসার্চ এমন একটা  মাধ্যম যার মাধ্যমে আমরা আমাদের কাঙ্খিত একটা বিষয়ের উপর যেটা গুগল সার্চ রেজাল্ট  শো করে বা আমরা জানতে চায়। সে বিষয়গুলো সঙ্গে সঙ্গে আমাদের সামনে দেখায়। আমরা গুগোলে  কিছু জানতে চাইলে প্রথমেই কিছু সার্চ দেই। যেমন ধরি হুমায়ূন আহমেদ লিখে সার্চ দিলে আমাদের সামনে অনেকগুলো রেজাল্ট হুমায়ূন আহমেদ উপর  শো করবে

হুমায়ূন আহমেদ

 

আর রেজান্টের উপর আনেক গুল বিষয় দেখায়। এগুলি প্রতিটাই হচ্ছে কি ওয়াড। আর প্রতিটা কি ওয়াডের কিছু কিছু বিশেষত্ব  আছে। এখন মেজিক হচ্ছে আমরা সুধু হুমায়ূন আহমেদ লিখে সার্চ দিলাম আর আমাদের সামনে আনেক গুল বিষয় সো করছে আমরা যেটা যান্তেও চাইনি সেই বিষয় গুলিও সো করাচ্ছে আমাদের সামনে। এটি গুগল আমাদের ভালবেসে দেখায়। তাও আবার ফ্রিতে। আর ফ্রিতে যেই জিনিস গুলি আমরা দেখতে পাই গুগল সার্চ রেজাল্টে। সেগুল হচ্ছে এক একটা কি ওয়াড। এর ভিতরে লুকিয়ে আছে তথ্যের ম্যাজিক।

 

কিওয়ার্ড রিসার্চ কেন করা হয়ঃ

 

এটা মূলত একটা গবেষণা । প্রতিটা গবেষণার  পিছনে একটা কারণ থাকে। মূলত কি ওয়াড রিসাস যারা করে তারা সাইটকে বা তাদের ওয়েবসাইট কে গুগলের প্রথম পেজে আনার জন্য কাজ করে। আর প্রথম পেজে ১০ জন মেজিসিয়ান বসে থাকে তাদের জাদু দেখাবার জন্য। কে জানে কার জাদু কত ভাল। তারা মূলত তাদের সাইটাটা ওই কি ওয়াড বেজ করে গড়ে তুলে। এখন আনেক কথা হোল কি ওয়াড রিসাস মেজিক কিভাবে হইল তাহলে। আসল কথায় এবার আসা যাক। আমরা যখন কি ওয়াড রিসাস করি। আমরা হয়ত জারা জানিনা তারাত জানিই না যে প্রতিটা কিওয়াডের কিন্তু সার্চ  ভলিয়ম আছে। মানে মানুষ এগুল খোজে। কিছু টারমস বা কিছু টুলস আছে যাদের মাধ্যমে এগুল দেখা যায়

 

https://keywordseverywhere.com/

 

এটি একটি এক্সটেনশন।

 

যার মাধ্যমে আপনি আপনার কি ওয়াদের সারস ভলিয়ম দেখতে পাবেন। এক মাসে কত জন ওই কি ওয়াডে সারস করে। তার  ভলিওম।

 

তারপর আবার কী ওয়াড কম্পিটিশন দেখার জন্য আর কিছু কি টুলস আছে। কিছু আছে পেইড আবার কিছু আছে ফ্রি। বিসমিল্লাহ বলে ফিরিদিয়ে সুরু করি। আমরা যারা ফরি খাই তাদের জন্য এগুল।

 

https://keywordtool.io/

 

https://kwfinder.com/

 

https://neilpatel.com

 

আর কিছু পেইড আছে যার মাধ্যমে আপনি আপনার কাজ গুলকে ফ্রির চেয়ে আর বেসি সহজ ভাবে করে দেবে। এটা আপনার সময় আনেক সেভ করবে। বাট পকেটের আনকে টাকা মেজিক করে নিয়ে যাবে আপনার কাছ থেকে তাদের পেইড টুলের জাদু দেখিয়ে।

 

https://ahrefs.com

 

https://www.semrush.com

 

এত কিছুে এতো আয়জন সে কার জন্য, সে সুধু তোমার জন্য প্রিয়তম কি ওয়াড আমার। তোমার জন্য আমার এত আয়জন। আর আমরা কি ওয়াড কে ফোকাস করি কিসের জন্য আমাদের সাইটে ভিজিটর আনার জন্য । যদি আমাদের ওয়েবসাইটকে একটা দোকানের সাথে তুলনা করি তাহলে দোকানের প্রতিটি মাল এক একটা কি ওয়াড এর সমতুল্য আর দোকানে এসে আমরা কিন্তু একটা জিনিস দেখি না সাথে আর কিছু দেখে নেই জনি আমাদের তা প্রয়জন থাকে । আর এই জন্য কি ওয়াড এত গুরুত্ব পুণ্য।

 

কি ওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করা হয়ঃ

 

আমি আগেই কিছু আলোচনায় টেনেছি কি ওয়াড রিসাস কোন কোন টুল দিয়ে করা হয়। এখন আসা যাক আমরা কি ওয়াড রিসাস কি ভাবে কোরব। প্রথমে নিস বা আমরা কোন বিষয়ের উপর আপনি কি ওয়াড চান সেটি আগে সিলেক্ট করে নিতে হবে। তার পর আপনার রিসাস সুরু । খেলা এখন বাকি আছে ভাই। আপনি কি ভাবে কোরবেন সেটা আসলে এক এক জনের জন্য এক এক রকম। কেননা যারা টাকা ব্যাবহার করে পেইড টুলস দিয়ে রিসাস করে তদের কষ্টটা একটু কম। কেননা তাদের কষ্টটা টাকার উপর দিয়ে চলে যায়। তাই তারা সহজে তাদের কি ওয়াড পেয়ে যায় তাই তাদের আর তেমন আসু বিধা থাকেন। আর কিছু মানুষ আছু যারা টাকা খরজ করতে চায়না বা করেনা আবার করতে চায়না বা করি করি করে করে না তাদের জন্য আরাক্টা মাধ্যম আছে সেটি হচ্ছে আরগানিক মাধ্যম। যার মাধ্যমে আপনি কস্টো করে আপনার কাঙ্ক্ষিত বিষয়ের কি ওয়াডটা পেতে পারেন।

 

বি দ্রঃ উপরে কিছু লিঙ্ক দেয়া হয়েছে যার মাধ্যমে আপনি সহজে আপনার ফ্রি কি ওয়াড রিসাস করে নিয়ে পারেন। আর পেইড গুলত পেইডি যাই হোহ আপাততো ফ্রিতে কাজ হলে। পরে আমরা আবার পেইডে যেতে পারব ইন্সাআল্লাহ।

 

কোন বিষয় গুলো দেখতে হয়ঃ

 

কি ওয়াড রিসাস করতে গেলে কিছু জিনিস আমাদের মাথায় রাখতে হয়। কোন কোন বিষয় গুল দেখতে হয় কি কি থাকেতে হয়। কারা আথরিটি আর কার নিস সেটি বুঝতে হয়।

 

  • সারস ভলিওম।
  • কি ওয়াড ডিফিকেল্টি
  • কম্পিটিটটর দের সাইট কেমন তাদের ডিয়ে পিয়ে কেমন।
  • তাদের সাইটগুল কেমন আথোরেটেটিভ নাকি সেমি আথোরেটিভ
  • তাদের পেজের বেকলিঙ্গ কেমন
  • নিস সাইট মানে ৫০০ পেজের  নিচে কত গুল আছে।
  • আথোরেটেটিভ কত গুল সাইট আছে।
  • সোশ্যাল সাইট কত গুল আছে
  • ই কমাস সাইট কত গুল আছে।

 

এই বিষয় গুল দেখার পর আমাদের আসল ডিসিসনে আস্তে আপি আমাদের কি ওয়াডাটা ভাল নাকি খারাপ এটি নিয়ে আমরা কাজ করতে পারব নাকি পারব না।

 

ভালো কীওয়র্দ কিভাবে পাওয়া যায়ঃ  

 

ভাল জিনিসের দামি একটু আলাদা এটাই আসলে মেজিক। মেজিম মানে আমরা আনেকে মনে করতে পারি আকল্পনিয়। আসলে মেজিক মানে সাইন্স এর সমন্বয়ে বা মেধার মাধ্যমে কিছু করা। যেটা আলাদা যেটা করাটা হয়ত আনেকে মনে করতে পারে আনেক কষ্টের কিন্তু আসলে সেটি একটু  বুদ্ধির বিষয়।

 

তাইত যারা কি ওয়াড রিসাস পারে তারা মেজেসিয়ান তারা আনেকে যা না পারে তারা তাই পারে। আর তারা তাই পারে বিধায় আনেকে তাদের থেকে আলাদা তাদের কাজের ধরন আলাদা। আপনি যদি ঠিক ভাবে কি ওয়াড রিসাস করতে পারেন তাহলে আপনি তারা তারি আপনার সাইট রেং করাতে পারবেন ।এটা আসলে সবারি পারার কথা। আর সময় দিয়ে মেধা দিয়ে আর মন দিয়ে কাজ করলে আমরা সবাই পারি একজন কি ওয়াড মেজিসেয়ান হতে।