কেমন নিস বাছাই করা ভালো জানেন কি
Digital Marketing

কেমন নিস বাছাই করা ভাল জানেন কি?

আসলে কোন পাত্রি বা পাত্র,আপনার পছন্দ সেটি বলা একটু মুশকিল বিষয়। কেননা চয়েজটা কিন্তু আপনার তাই এটা বলা একটু মুশকিল। কিন্তু এটা একটা সত্যি যে আপনি কাউকে না কাউকে পছন্দ করেন সে, এঞ্জেলিনা জলি বা ক্যাটরিনা কাইফ হোক বা ভুরিওয়ালা একখান টম কুরুজকে,  কাউ কেনা কাউ কে। আপনার হয়ত ভাল লাগে।

ভাল লাগা এটা একটা আপেক্ষিক বিষয়, এটা আপনি কিছু দিয়ে মাপ্তে পারবেন না মাপাটা একটু কঠিন। ভাল লাগার বিষয়টা আনেক কবি সাহিত্যক ভাল ভাবে বোঝেতে ও আনেক সোময় আক্ষম বোধ করেছে।

কেমন নিস বাছাই করব।

আমরা জারা নিস নিয়ে কজ করি তাদের কাছে আনেক সময় আফসোন আনেক কম থাকে কারন আমরা সুরুতেই আনেক উচু চিন্তা করে থাকি। তাই আমাদের কাছে নিস সিলেক সন একটা আতিব প্রয়জনিয় বিষয়।

 

কোন ধরনের নিস ভাল। কোন ধরনের নিস টাকা বেসি। কোথায় ভিজিটর বেসি কোথায় খালি কোথায় করতে করতে আমারা কোথায় যেন হারিয়ে যাই।

এক বার কি আপনি আপনার পছন্দের কথা চিন্তা ক্রেছেন। আপনার কি ভাল লাগে। কিসে আপনার ভালবাসা। আসলে আমরা যা করি তার পিছনে ভালবাসা একটা আতিব গুরুত্ব পুণ্য বিষয়। একজন মুচি যদি ভাল ভাবে জুত সেলাই করে আর সেটা যদি হয় তার ভালবাসা। তাহলে সে ওই খানে কাজ করে আরাম পারে। আর তার কাজ থেকে সে ভাল কিছু ইনকাম ও করতে পারবে।

 

আনেকে স্পোস ভাল লাগে। তাকে জদি বলি আপনি তামিম কি নিয়ে কিছু লিখেন বা বা ক্রিকেট নিয়ে বা বেট নিয়ে লিখেন। কি ভাবে একটা নিস সাইট বানাবেন সেটি সাজান। ভাল লাগা নিয়ে কাজকরলে  তার কাছে সেটি একটা আতিব সহজ কাজ বলে মনে হবে। কেননা সে এই বিষয়ে ভাল লাগা কাজ করে। তাই নিস বাছাই করার আগে আপনাকে আপনার পছন্দ বাছাই করতে হবে। এটা একটা অতীব গুরুত্ব পুণ্য কাজ বটে।

কোন নিসে কত টাকা।

আসলে সব নিসে কমবেসি টাকা আছে জদি আপনি করতে পারেন। আপনি এমাজন করবেন নাকি এডসেন্স করবেন।ভাল লাগার আনেক কিছু আছে এখানে। আপনি হননে হয়ে আগে যদি টাকার পিছনে ছুটেন তাহলে আমি বোলব আপনি বোকাদের মাঝে একজন। কেননা কাজ জানলে টাকার আভাব হয়না। (গুরু জনের উক্তি) তাই আপনাকে একটু কৌশলী হতে হবে। কাজের বেপারে আপানার যে বিষয়ের উপর ভাল জ্ঞেন আছে সেই বিষয় গুলোর উপর থেকে রিসাস করুন। আপনি সামনে ভাল করবেন।

 

রিসাস করা কেন এত গুরুত্ব পুণ্য এখন বোঝা যায়। আপনি আপনার ফোকাস নিসে ভাল ভবে রিসস করুন এমাজন এফেলিয়েট করলে চিন্তা করুন প্রডাক্ট মাথায় রেখে কাজ করুন। সম্ভাব্য 80 ডলার থেকে 200 ডলারের মধ্যে প্রোডাক্ট রেঞ্জ রাখুন। কেননা এক রিসার্চে দেখা যাচ্ছে মানুষ যখন 200 ডলারের উপরে কিছু কিনতে যায় তখন সে কিছুটা চিন্তা করে। তাই প্রোডাক্ট রেঞ্জ ৮০ থেকে ২০০ ডলারের ভিতরে হওয়াটাই ভালো

 

আপনি যদি এডসেন্স করেন। তাহলে কোন ধরনের নিস গুলো আপনার জন্য সিলেক্ট করা লাভ দায়ক। কেননা এখানে পুরটাই বা আপনার ইনকাম এডসেন্স থেকে তাই। । তাই আমাদেরকে একটু বিচক্ষণ ভাবে সবকিছু পর্যবেক্ষণ করতে হবে। দেখতে হবে কোন বিষয়গুলোর উপর মানুষের আগ্রহ অনেক বেশি। সেই বিষয়গুলোর উপর আমি যদি লিখি তাহলে আমার সাইডে অনেক ভিজিটর আসবে এবং আমি এইসব কি ওদের জন্য এডসেন্স থেকে ভাল উপর্জন করতে পারব

 

উদাহরণঃ

আমেরিকায় কেউ যদি অ্যালকোহল পান করে গাড়ি চালায় তাহলে তার শাস্তি কি।  রেস্টুরেন্ট বিজনেস করে। তাকে কোন কোন বিষয়গুলোর উপর নজর রাখতে হবে যাতে তার লাইসেন্স টা বাতিল না  হয়। আসলে আমাদের কি বুঝতে হবে। কোন জিনিসটা মানুষ বেশি যাচ্ছে। সর্বপ্রথম আমরা একটা বিষয় মাথায় রাখবো  গুগলে সবাই ইনফর্মেশন চায় বা বিপদে পড়ে আসে। এবং বিপদ থেকে উদ্ধারের পথ খুঁজে। তাই আপনার সাইডে ভালো ইনফরমেশন থাকে যা মানুষ বেশি বেশি খোঁজে সে বিষয়গুলি থাকলে আপনি এডসেন্স এর জন্য লাভবান হবেন।

 

আমাদের এই বিষয়টা মাথায় রাখতে হবে কোন বিষয়ে যদি আমাদের ভালো লাগা কাজ না করে তাহলে সে বিষয়গুলো নিয়ে বেশিদিন আগানো সম্ভব হয় না। তাই বেশিরভাগ মানুষ হাল ছেড়ে দেয় থমকে দাঁড়ায়। পিছু  পা হাটে। এবং সর্বোপরি বলে না এ বিষয়টা আমার জন্য না। কিন্তু ততদিনে জল গড়িয়ে বহুদূর। আপনি আবার নতুন করে কিছু ভাববেন আবার নতুন কিছু করবেন। আর বলবেন নিস সাইট তেমন ভালো না। এখানে অনেক কম্পিটিশন অনেক লড়াই তাই এটা সবার জন্য নয়।

 

সর্বোপরি একটা কথা আপনি যদি নিস সাইট করতে যান বা এডসেন্স এর জন্য সাইট করেন। তাহলে সেই বিষয়ের উপর আপনার যদি ভালো লাগা না থাকে। তাহলে আগে ভালো লাগা তৈরি করুন। কিছুদিন একটা বিষয় নিয়ে আপনি যদি ভালো লাগানোর চেষ্টা  করেন। আস্তে আস্তে সে বিষয়গুলো আপনার কাছে ভালো লাগতে শুরু করবে। তাই ভালো কিছু করার জন্য লেগে থাকুন ভালবাসতে শিখুন। একটা বিষয় মনে রাখবেন আপনি যদি কাউকে ভালোবাসেন মন থেকে একদিন না একদিন সেও আপনাকে ভালোবাসবে। হয়তো সময় একটু বেশি লাগবে।